SHARE

মুক্তি পাওয়া ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবিটি সাম্প্রতিক কালের অন্যতম ব্যবসাসফল ছবি হতে যাচ্ছে বলে মনে করছেন চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্টরা। শুক্রবার ছবিটির নেট সেল ছিল ১ কোটি ৫ লাখ টাকা। আর গ্রস সেল ছিল ৪ কোটি ২০ লাখ।

শনিবার ছবিটির নিট সেল ছিল ৭১ লাখ টাকা। গ্রস সেল ছিল দুই কোটি ৮৪ লাখ টাকা। রবিবার দুপুরে এসব তথ্য জানিয়েছেন ছবিটির পরিবেশক প্রতিষ্ঠান অভি কথাচিত্রের কর্ণধার জাহিদ হাসান অভি।

পরিচালক দীপঙ্কর দীপন জানিয়েছেন, শুক্রবার রাতে মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহের মালিক ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ ফোন করে অভিনন্দন জানান তাকে। প্রথম দিনেই তিনটি শো হাউসফুল হয়েছে। তাদের চোখে এটা রেকর্ড।

শনিবার (৭ অক্টোবর) সকালে পরিচালককে বলাকা সিনেমা হলের ম্যানেজার জানান, সাধারণত যে কোনও ছবি মুক্তির পরদিন টিকিট বিক্রি পড়ে যায়। কিন্তু এদিন আরও বেড়েছে!

অভি কথাচিত্রের তথ্য অনুযায়ী— বলাকা থেকে টিকিট বিক্রয় প্রতিনিধি তাদের জানিয়েছেন, সকালের শো হাউসফুল। ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবিতে আরিফিন শুভ ও মাহিয়া মাহি ঢাকার বেশ কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে শনিবার খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দিনের সবকটি শো হাউসফুল গেছে।

দেশের সর্ববৃহৎ হল যশোরের মনিহারেও দর্শকদের উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে শুক্র ও শনিবার। ঈদ কিংবা অন্য উৎসব ব্যতিত এ চিত্র বিরল বলে জানান এই প্রেক্ষাগৃহ কর্তৃপক্ষ। চট্টগ্রামের আলমাসে শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টার শোতে দর্শকের চাপে অতিরিক্ত চেয়ার বসাতে হয়েছে প্রেক্ষাগৃহ কর্তৃপক্ষকে। নারায়ণঞ্জের নিউমেট্রো সিনেমা হলেও ছিল একই চিত্র।

অভি বলেন, আমাদের দেশের বক্স অফিস হিসেব না থাকায় আমরা পুরোপুরি নিশ্চিত তথ্য দিতে পারি না। তবে কাছাকাছি তথ্য দিতে পারি। যেমন একটা টিকিট সেল হলো ১০০ টাকায়, সেখান থেকে আমরা অর্থাৎ প্রযোজক পাবেন ২৫ টাকা। সে অনুযায়ী আমরা গ্রস সেলটা ধরতে পারি। মোটামুটি এই ধারণার ওপর আমরা দুই দিনের মোট গ্রস সেল হিসেব করতে পারি।

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশের ১২৫টি হলে মুক্তি পেয়েছে আরেফিন শুভ, মাহিয়া মাহি, এ বি এম সুমন, নওশাবা, তাসকিন, আলমগীর, হাসান ইমাম, শতাব্দী ওয়াদুদ, আফজাল অভিনীত ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবিটি। সারা দেশ থেকে ছবিটির ব্যবসায়িক সাফল্যের কথা আসছে। ছড়াচ্ছে সোশাল মিডিয়ায়। মানুষ আরো বেশি আগ্রহী হচ্ছে ঢাকা অ্যাটাকের প্রতি।