দেশের সব সরকারি-বেসরকারি কলেজে একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তির কার্যক্রম শুরু হয়েছে। শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল রোববার দুপুরে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড মিলনায়তনে অনলাইনে আনুষ্ঠানিকভাবে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

নওফেল বলেছেন, এবার একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রমে প্রতারণার আশ্রয় গ্রহণ করলে কঠোরভাবে দমন করা হবে। প্রথমবারের মতো ভর্তিচ্ছুক শিক্ষার্থীর অভিভাবকের ন্যাশনাল আইডি কার্ডের পিন নম্বর বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

গত কয়েক বছরের মত এবারও মাধ্যমিকের ফলাফলের ভিত্তিতে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইনে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

আটটি সাধারণ বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ড থেকে ২০১৭, ২০১৮ ও ২০১৯ সালে মাধ্যমিক উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবেন। আর উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০১৬, ২০১৭ ও ২০১৮ সালে উত্তীর্ণরা একাদশে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবেন।

উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ভর্তির ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বয়স হবে ২২ বছর। সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে বাধ্যতামূলকভাবে অনলাইনে (www.xiclassadmission.gov.bd) শিক্ষার্থী ভর্তি করাতে হবে। পাশাপাশি টেলিটক মোবাইল থেকে এসএমএস করে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করা যাবে।

অনলাইনে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করতে ফি দিতে হবে ১৫০ টাকা। টেলিটক/বিকাশ/শিওরক্যাশ/গ্রামীণফোন-এর মাধ্যমে এই টাকা জমা দিয়ে আবেদন করতে হবে অনলাইনে। আবেদনে একজন শিক্ষার্থী সর্বনিম্ন ৫টি এবং সর্বোচ্চ ১০টি কলেজের পছন্দক্রম ঠিক করে দিতে পারবেন।