মুসলিম ধর্মের অনুসারী হয়েও বিয়ে করেছেন অমুসলিম ব্যক্তিকে। এরপরে সিঁথিতে সিঁদুর পরে সংসদে গিয়েছেন অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। সেখানে আবার শপথ বাক্য পাঠ করার সময়ে বলেছেন বন্দেমাতরম। সব মিলিয়ে একের পর এক প্রশ্ন তুলে যাচ্ছেন কট্টরপন্থীরা। এ নিয়ে এত দিন চুপ ছিলেন নুসরাত জাহান। এবার মুখ খুললেন।

তিনি জানান, এসব কথা গায়ে মাখেন না। তিনি সমন্বিত ভারতের প্রতিনিধিত্ব করছেন। নুসরাত জাহান বলেন, একটি সমন্বিত ভারতকে প্রতিনিধিত্ব করছি আমি, যা জাতপাত ও ধর্মের বাধার অনেক ঊর্ধ্বে।

এদিকে, টুইটারে নুসরাত জাহান লিখেছেন, যেকোনো ধর্মের উগ্র মানসিকতার মন্তব্যে কান দেওয়া বা প্রত্যুত্তরে প্রতিক্রিয়া প্রদান করা কেবল ঘৃণা ও হিংসার সৃষ্টি করে। ইতিহাস এর সাক্ষী।

নুসরাত আরও বলেন, ‘আমি এখনও একজন মুসলিমই। আর আমি কী পরব বা পরব না এই নিয়ে কারোরই কোনও মন্তব্য করা উচিত নয়। আস্থা পোশাক পরিচ্ছদের অনেক ঊর্ধ্বে, এটা পুরোটাই বিশ্বাস। সকল ধর্মের মূল্যবান মতবাদ নিজের মতো করে চর্চা করার উপরেই নির্ভর করে।’

গত ১৯ জুন সন্ধ্যায় তুরস্কের রোমান্টিক বন্দর শহর বোদরুমের সিক্স সেন্সেস কাপলাঙ্কায়া রিসোর্টে অগ্নিসাক্ষী রেখে নিখিল জৈনকে বিয়ে করেন ভারতের বাংলা ছবির জনপ্রিয় তারকা ও পশ্চিমবঙ্গ থেকে লোকসভার নবনির্বাচিত সদস্য নুসরাত জাহান।

পরদিন একই স্থানে তাঁদের বিয়ে হয়েছে খ্রিষ্টান রীতিতে। বিয়ের পর নুসরাত জাহানের নতুন নাম হয়েছে ‘নুসরাত জাহান রুহি জৈন’।