সম্প্রতি স্বামী নিখিল জৈন সঙ্গে নিয়ে খাজা হজরত নিজামুদ্দিনের দরগা শরীফে গেলেন নুসরাত। আর সেই দরগা থেকে একটি ছবি ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করে নিখিল লিখেছেন- ‘ভগবান সর্বত্র। তুমি কোথায় তাকে খুঁজে পাবে তা নির্ভর করছে তোমার উপর। আমি তোমার মধ্যেই আমার ভগবানকে খুঁজে পেয়েছি।’ উল্লেখযোগ্য বিষয়টি হলো, ছবিতে নুসরাতের কপালে এতদিনের লেগে থাকা সিঁদুরও দেখা যায়নি।

 

View this post on Instagram

 

God is everywhere. You just need to know where to look. I found mine in you @nusratchirps

A post shared by Nikhil Jain (@nikhiljain09) on

সম্প্রতি বিয়ের পর তিনি মাথায় সিঁদুর পরেন। মুসলিম ঘরের মেয়ে হয়েও কেন তিনি হিন্দু রীতিতে অমুসলিমকে বিয়ে করেছেন, হিন্দু নারীদের মতো সিঁদুর পরেন সেই প্রশ্ন উঠছে বারবার। নুসরাত জানান, এসব কথা গায়ে মাখেন না তিনি।

নুসরাতের এমন সব কর্মকাণ্ডের সমালোচনা করে ফতোয়া জারি করেছিলেন দেববন্দের ইমাম। ইসলামধর্মে অগ্রহণযোগ্য বলে ফতোয়া জারি করে প্রসিদ্ধ আলেমগণ বলেন, নুসরাত আর মুসলমান রইল না।

এর জবাবে আত্মপক্ষ সমর্থন করে ভারতের জনপ্রিয় টিভি অনুষ্ঠান আপ কি আদালতে নুসরাত বলেন, ‘আমি একজন মুসলিমই থাকব এবং আমি কী পরব তা নিয়ে কারও কথা বলার অধিকার নেই। বিশ্বাস সব কিছুর ঊর্ধ্বে। আমার ধর্ম ও বিশ্বাস (ঈমান) কেড়ে নেয়ার অধিকার কারও নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘ধর্ম হলো বিশ্বাসের ব্যাপার আর আমার বিশ্বাস পাক্কা। সিঁদুর ও মঙ্গলসূত্র পরে আমি আমার বিশ্বাস হারাইনি।’