দেশে করোনায় মারা যাওয়া ৬০ শতাংশই প্রবীণ

0
4
Coronavirus

প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে দেশে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা। সব রেকর্ড ছাপিয়ে ‘সর্বাত্মক লকডাউন’র প্রথম দিন বুধবার (১৪ এপ্রিল) দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৯৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৯ হাজার ৯৮৭ জনে।

গত ২৪ ঘণ্টার মৃত্যুর পরিসংখ্যান বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, মৃত ৯৬ জনের মধ্যে ৫৯ জন ছিলেন পুরুষ। বাকী ৩৭ জন ছিলেন মহিলা।

বয়স বিবেচনায় দেখা যায়, সবচেয়ে বেশি মারা যাচ্ছেন ষাটোর্ধ ব্যক্তিরা। ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৯৬ জনের মধ্যে ৫৫ জনেরই বয়স ছিল ষাটোর্ধ। এছাড়া ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী মারা গেছেন ২৫ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী মারা গেছেন ১২ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সীদের মধ্যে মারা গেছেন ২ জন ও ১১ থেকে ৩০ বছর বয়সী মারা গেছেন ৪ জন।

শতকরা হিসাবেও প্রবীণদের মারা যাওয়ার হার সবচেয়ে বেশী। দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হবার পর থেকে মারা যাওয়াদের মধ্যে শতকরা ৫৯ দশমিক ৩০ শতাংশ হলো ষাটোর্ধ। এছাড়া ৫০ থেকে ৫৯ বছরের মধ্যে মারা যাওয়ার হার ২৪ দশমিক ৫৮ শতাংশ। ৪১ থেকে ৫০ বয়সীদের মধ্যে এই হার ১১ দশমিক ১২ শতাংশ। ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সীদের মধ্য মারা যাওয়ার হার ৪ দশমিক ৯৬ শতাংশ। ২১ থেকে ৩০ এর মধ্যে ১ দশমিক ৯২ শতাংশ, ১১ থেকে ২০ এর মধ্যে শূন্য দশমিক ৭১ শতাংশ। আর সবচেয়ে কম মারা যাচ্ছে শূন্য থেকে ১০ বছর বয়সী শিশুরা। এ ক্ষেত্রে মারা যাওয়ার হার শূন্য দশমিক ৪০ শতাংশ।