গত ২২ মার্চ থেকে এই চিকিৎসক তাঁর একমাত্র মেয়ে ও পরিবারের অন্যদের থেকে দূরে থাকছেন। এদিনের পর তিনি কর্মস্থল গাজীপুর থেকে আর বাসায় ফেরেননি। তিনি গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্মরত।

ছয় বছরের এক শিশু তার চিকিৎসক বাবার কাছে আবেগঘন চিঠি লিখেছে। চিঠিতে করোনাভাইরাসকে মেরে দিয়ে তাড়াতাড়ি বাবাকে বাসায় ফিরতে বলেছে সে।

শিশুটি তার চিঠিতে লিখেছে:

তুমি কেমন আছো? কতদিন হলো তুমি আসছো না। আমি কার সাথে খেলা কোরবো? আম্মু বোলেছে করোনা কে তুমি ঢিসুম দিতে হাসপাতালে গিয়েছো। করোনাকে মেরে দিয়ে তাড়াতাড়ি বাসায় চলে এসো। তুমি বোকা ছেলে।

করোনাভাইরাস বিস্তারের বর্তমান পরিস্থিতিতে এই চিকিৎসক গণমাধ্যমে নিজের ও পরিবারের সদস্যদের নাম-পরিচয় প্রকাশ করতে চাননি।