CORONAVIRUS

দেশের নিম্ন আদালতে দায়িত্বরত ১৩ বিচারক ও ২৬ জন কর্মচারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া করোনা উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশনে রয়েছেন আরো চারজন বিচারক।

আজ মঙ্গলবার (১৬ জুন) সকাল পর্যন্ত সারা দেশ থেকে সুপ্রিম কোর্টে পাঠানো তথ্যানুযায়ী এই পরিসংখ্যান জানা গেছে।

বিজ্ঞপ্তির জানাযায়, নেত্রকোনার জেলা ও দায়রা জজ শাহাজাহান কবির প্রথম করোনায় সংক্রমিত হন। একই দিন মুন্সিগঞ্জের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম রোকেয়া রহমানও সংক্রমিত হন। বর্তমানে তারা সুস্থ হয়ে আবার কাজ যোগ দিয়েছেন। এই মুহূর্তে ঢাকার সিএমএইচের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন বিচারক ফেরদৌস আহমেদ। লালমনিরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের এই বিচারককে (জেলা জজ) প্লাজমা দেওয়া হয়েছে।

যেসব বিচারক নিজ বাসস্থানে চিকিৎসাধীন তাঁরা হলেন:

কিশোরগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক কিরণ শংকর হালদার, জয়পুরহাটের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. রুস্তম আলী, আইন ও বিচার বিভাগের উপসচিব এস মোহাম্মদ আলী, কুড়িগ্রামের ল্যান্ড সার্ভে ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. তৈয়ব আলী, ডিপিডিসি-২ এর স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম রেজমিন সুলতানা, নেত্রকোনার সহকারী জজ মো. মেহেদী হাসান, চট্টগ্রামের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সালেহ মোহাম্মদ নোমান এবং নোয়াখালী হাতিয়া চৌকি আদালতের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. নিজাম উদ্দিন।