মাঘে বাড়ছে শীতের তীব্রতা

0
17

প্রায় দুই সপ্তাহের উষ্ণতার পর গত দু’দিন ধরে স্বরূপে ফিরেছে শীতকাল। প্রকৃতিতে এখন শীতল পরিবেশ। শৈত্যপ্রবাহের কাঁপন ধরিয়ে বিদায় নিল পৌষ। আজ শুক্রবার থেকে মাঘ শুরু। কথায় বলে, মাঘের শীতে বাঘ পালায়। শীতের এই দাপট এবারও থাকবে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, মাঘ মাসেই আরও শৈত্যপ্রবাহ আসতে পারে। গত দু’দিন ধরে দেশের উত্তরাঞ্চলসহ বিভিন্ন স্থানে চলমান শৈত্যপ্রবাহ আরও ৩-৪ দিন থাকতে পারে।

আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান বলেন, আগামী কয়েক দিনে শৈত্যপ্রবাহের এলাকা ও তীব্রতা বাড়বে। আবারও শৈত্যপ্রবাহ আসতে পারে।

গত কয়েকদিন ধরে শীত অনেকটাই কমে গিয়েছিল। পৌষের একেবারে শেষ পর্যায়ে এসে গত বুধবার থেকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার তা আরও নতুন এলাকায় বিস্তৃতি লাভ করেছে। গত বুধবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল নওগাঁর বদলগাছীতে।

বৃহস্পতিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে দিনাজপুরে ৭ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল টেকনাফে ২৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, তাপমাত্রা ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলে তা মৃদু শৈত্যপ্রবাহ, ৬ থেকে ৮ ডিগ্রির মধ্যে থাকলে মাঝারি এবং এর নিচে নামলে তা তীব্র শৈত্যপ্রবাহ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়। গত বুধবার রাজশাহী, পাবনা, নওগাঁ, দিনাজপুর, সৈয়দপুর ও কুড়িগ্রাম অঞ্চলে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়। বৃহস্পতিবার পুরো রংপুর বিভাগে শৈত্যপ্রবাহ ছড়িয়ে পড়ে। এ ছাড়া রাজশাহী, পাবনা ও নওগাঁ অঞ্চলের ওপর দিয়েও শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে।

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি জানান, কুড়িগ্রামে গত বুধবার সকাল থেকে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে তাপমাত্রা কমেছে ১ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৭ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ফলে কনকনে ঠান্ডায় জবুথবু হয়ে পড়েছে জনজীবন।

জেলার রাজারহাটের কৃষি ও সিনপটিক আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র সরকার জানান, মৃদু শৈত্যপ্রবাহটি মাঝারি আকার ধারণ করেছে। আর আকাশে মেঘ না থাকায় সকালের পর সূর্যের দেখা মিললেও উত্তাপ ছিল না। এ অবস্থা আরও তিন-চার দিন অব্যাহত থাকতে পারে।

বৃহস্পতিবার আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। এ কারণে দেশের আকাশ অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা এবং সারাদেশের আবহাওয়া শুস্ক থাকতে পারে।

পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সারাদেশে মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং এটি উত্তরাঞ্চলের কিছু কিছু জায়গায় দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। এ ছাড়া সারাদেশে রাত ও দিনের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে।