যুক্তরাষ্ট্রের ম্যারিল্যান্ডভিত্তিক জৈবপ্রযুক্তি কোম্পানি নোভাভ্যাক্স করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের প্রথম দফার পরীক্ষা শুরু করেছে। গতকাল সোমবার প্রতিষ্ঠানটি তাদের ভ্যাকসিন একজনের শরীরে প্রয়োগ করে এই পরীক্ষা শুরু করেছে। জুলাই মাসে এর ফল পাওয়া যেতে পারে।

বিশ্বজুড়ে ১০০ টির বেশি ভ্যকসিন তৈরিতে কাজ চলছে। এর মধ্যে যে কয়েকটি ভ্যাকসিন মানবদেহে পরীক্ষার পর্যায়ে পৌঁছেছে, এর মধ্যে নোভাভ্যাক্সের ভ্যাকসিনটি অন্যতম।

অ্যাডজভান্ট মূলত ভ্যাকসিনকে শক্তিশালী প্রতিরোধ ক্ষমতা জাগ্রত করতে ব্যবহৃত হয়; যার মধ্যে বেশি পরিমাণ অ্যান্টিবডি তৈরি, ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে দীর্ঘসময় সুরক্ষার বিষয়টি যুক্ত থাকে।

নোভাভ্যাক্স বলছে, তারা জুলাইয়ের প্রাথমিক পরীক্ষায় প্রতিরোধ ক্ষমতা ও সুরক্ষা ফলাফল প্রত্যাশা করছে। প্রাথমিক ধাপ সফল হলে তারা কয়েকটি দেশে দ্বিতীয় ধাপ শুরু করবে। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রেও পরীক্ষা চালানো হবে। দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষাটি আরও বেশি বয়সসীমায় অনাক্রম্যতা, সুরক্ষা ও কোভিড-১৯ রোগ হ্রাসের বিষয়টি মূল্যায়ন করবে।