coronavirus

পাকিস্তানের মন্ত্রিসভার সদস্যদের মধ্যে এবার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাফর মির্জা। স্বাস্থ্যমন্ত্রী নিজেই তার করোনা টেস্ট পজিটিভ এসেছে বলে জানান।

এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, আমার টেস্ট পজিটিভ এসেছে। চিকিৎসকের পরামর্শে আামি বাড়িতে আইসোলেশনে আছি। আমার উপসর্গ মৃদু। সব ধরনের সতর্কতা অবলম্বন করছি। খবর এনডিটিভির

করোনাভাইরাস মহামারির রূপ ধারণ করার পর থেকে পাকিস্তানের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সরকারের সামনের সারিতে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। পাকিস্তানের বেশ কয়েকজন সাংসদ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ইতোমধ্যে কয়েকজন মারাও গেছেন।

সোমবার পর্যন্ত পাকিস্তানে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ লাখ ৩১ হাজার। মারা গেছেন ৪ হাজার ৭৬২ জন।

গত শুক্রবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মোহাম্মদ কুরেশি করোনায় আক্রান্ত হন। প্রথমে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকলেও অবস্থার অবনতি হওয়ায় শনিবার তাকে রাওয়লপিণ্ডির সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

পাকিস্তানে করোনায় আক্রান্ত নেতা-মন্ত্রীদের তালিকা যথেষ্ট দীর্ঘ। রেলমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ, পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ-এর নেতা জয় প্রকাশ, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী শহিদ খাকান আব্বাসি, মুত্তাহিদা কওমি আন্দোলন পাকিস্তান (এমকিউএম-পি) নেতা, তথ্য-প্রযুক্তি ও টেলিযোগাযোগ বিষয়ক ফেডারেল মন্ত্রী সৈয়দ আমিনুল হক, মন্ত্রী শাহরিয়ার আফ্রিদি, পিটিআইয়ের-এর চিফ হুইপ আমির ডোগার প্রমুখ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।