নিজের প্লাটফর্ম গড়ে তুলবেন টুইটারে নিষিদ্ধ ট্রাম্প!

0
6

ক্যাপিটল হিলে ট্রাম্প সমর্থকদের তাণ্ডবলীলায় আতঙ্কিত পুরো বিশ্ব। সারা বিশ্বে ধিক্কারধ্বনির মুখে প্রেসিডেন্ট নিজেই। তবে এতে কোনো প্রতিক্রিয়া হয়নি বিদায়ী প্রেসিডেন্টের।

বুধবার সমর্থকদের বেপরোয়া আচরণে বিন্দুমাত্র প্রতিক্রিয়াও হয়নি তার। নিজের দাবি নিয়ে টুইটের পর টুইট করে গেছেন ট্রাম্প।

শুক্রবার টুইটার কর্তৃপক্ষ সহিংস ঘটনার পুনরাবৃত্তিতে তার টুইট বার্তা আবার কোনো ভূমিকা রাখতে পারে, এমন আশঙ্কায় তার অ্যাকাউন্ট স্থায়ীভাবে বন্ধ করে দিয়েছে। তবে তাতে দমেননি বিদায়ী প্রেসিডেন্ট। নিজের বক্তব্য প্রচারের জন্য সরকারি @POTUS অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেছেন তিনি। তাতে বলেছেন নিজের কথা। বলেছেন, নিজের জন্য একটা প্লাটফর্ম গড়ে তুলবেন তিনি। খবর এনডিটিভির।

ওইদিন ট্রাম্পের টুইটার অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে যাওয়ার ফলে ট্রাম্প তার নয় কোটি ফলোয়ারের দৃষ্টি থেকে আড়াল হয়ে যান।

২০১৬ সালে নিজের প্রথম নির্বাচনের সময় অসংখ্য টুইট করেন ট্রাম্প। রিপাবলিকান সমর্থকরা তার টুইটে ভালই উদ্দীপ্ত হয়েছিলেন। ডেমোক্রেটিক প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের পরাজয় কিছুটা নিশ্চিত করেছিল ট্রাম্পের অবিরাম টুইট বার্তা। এর পর থেকে নিজের গুণকীর্তন ও বিরোধীদের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানানোর কাজে বার বার টুইটারকে ব্যবহার করেছেন তিনি।

টুইটার কর্তৃপক্ষ অবশ্য সব সময় নজর রাখছিল ট্রাম্পের টুইট করা বার্তাগুলোর ওপর। মাঝে মধ্যে তার অ্যাকাউন্ট বাতিলের সতর্কতাও দিয়েছে। তবে বুধবার ক্যাপিটল হিলের ঘটনার পর টুইটার কর্তৃপক্ষ তার টুইটের বিষয়ের ওপর নিবিড় নজর রাখে এবং শুক্রবার টুইটার অ্যাকাউন্ট বাতিল করে দেয়। ট্রাম্প এবার সরকারি টুইটার অ্যাকাউন্টে তার ফলোয়ারদের ‘দেশপ্রেমিক’ হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেন, আমরা কখনো চুপ করব না। আমরা আমাদের কথা বলতেই থাকব। পরে টুইটার তার সব টুইটই মুছে ফেলে।