ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনিসহ রেভ্যুলিউশনারি গার্ডের আট সিনিয়র কমান্ডারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল এ সংক্রান্ত একটি নির্বাহী আদেশে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প স্বাক্ষর করেছেন বলে বাণিজ্যমন্ত্রী স্টিভ মনুচিন জানিয়েছেন। তেহরান নিষেধাজ্ঞার অজুহাতকে বানানো বলে আখ্যায়িত করেছে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং সৌদি আরব যৌথ বিবৃতিতে চলমান সমস্যার সমাধান কূটনৈতিকভাবে করার আহবান জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের একটি গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করার পর ইরানের ওপর চাপ বাড়ানোর পদক্ষেপ হিসেবে গতকাল সোমবার নজিরবিহীন এ পদক্ষেপ নিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প জানিয়েছেন, গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন ভূপাতিত করার প্রতিক্রিয়ার অংশ হিসেবে নিষেধাজ্ঞাটি আরোপ করা হয়েছে, তবে অন্য কোনো কারণে হলেও এটি আরোপ করা হতো।

নতুন নিষেধাজ্ঞার মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফকে ও দেশটির এলিট ফোর্স রেভল্যুশনারি গার্ডের শীর্ষ আট কর্মকর্তাকে কালো তালিকাভুক্ত করতে যাচ্ছে।