অধ্যাপকের ব্যাগে প্রেমিকার কাটা হাত-পা

0
50

প্রেমিকাকে খুন করে ব্যাগে ভরে নদীতে ফেলে দিতে গিয়েছিলেন রাশিয়ার ৬৩ বছর বয়সী এক অধ্যাপক। কাজটা করার সময় মদ্যপ ছিলেন। ফলে পা পিছলে নদীতে পড়ে গেলে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করেন। তার ব্যাগে পাওয়া যায় এক নারীর কাটা হাত-পা।

জিজ্ঞাসাবাদে শেষ পর্যন্ত স্বীকার করলেন তিনি তার ২৪ বছর বছর বয়সী প্রেমিকাকে খুন করেছেন। ছাত্রী আনাস্তাসিয়া ইয়েশচেঙ্কোর বিকৃত দেহ পুলিশ পরে ইতিহাসের ওই অধ্যাপকের বাড়ি থেকে উদ্ধার করে।

প্রফেসর ওলেগ সোকোলফ নেপোলিয়নের ইতিহাসের বিষয়ে বিশেষজ্ঞ। তাকে লিজিয়ন দ্য অনিউর নামে বিশেষ সস্মানে ভূষিত করেছে ফ্রান্স। খবর বিবিসির।

ছাত্রীর আইনজীবী জানান, অধ্যাপক ওলেগ সোকোলফ মাতাল অবস্থায় নদীতে পড়ে যান। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, তিনি ওই নারীর দেহের খণ্ডিত অংশগুলো নদীতে ফেলার জন্য সেখানে গিয়েছিলেন। ছাত্রী আনাস্তাসিয়া ইয়েশচেঙ্কোর বিকৃত দেহ পুলিশ পরে ওই অধ্যাপকের বাড়ি থেকে উদ্ধার করে।

অধ্যাপকের আইনজীবী আলেকজাণ্ডার পচুইয়েভ সংবাদমাধ্যমকে জানান, তিনি তার অপরাধ স্বীকার করেছেন। কৃতকর্মের জন্য তিনি এখন মর্মাহত এবং মামলা নিয়ে পুলিশকে সহযোগিতা করছেন।

প্রফেসর সোকোলফ পুলিশকে জানান, একটি বিষয়ে তর্কাতর্কির সময় তিনি তার প্রেমিকাকে খুন করেন এবং তারপর করাত দিয়ে তার প্রেমিকার মাথা, হাত ও পা কেটে ফেলেন।