বার্সা এভাবেও ঘুরে দাঁড়াতে পারে!

0
7

শিরোপার লড়াইয়ে এগিয়ে থেকে বার্সেলোনার হেরে যাওয়ার ঘটনা গেল ক’বছরের যেন জানা ঘটনা। সর্বশেষ স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালেও শেষ সময়ে গোল খেয়ে হেরেছে কাতালানরা। কিন্তু পিছিয়ে থেকে দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়ানোর ঘটনা সম্প্রতি কমই ঘটাতে পেরেছে তারা। খুঁজলে বরং পিএসজির বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লিগে বার্সার সাবেক তরুণ নেইমার ঝলকের কথাই মনে পড়বে।

এবার কোপা দেল রে’র কোয়ার্টার ফাইনালে গ্রানাডার বিপক্ষে অসাধারণ ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প লিখেছে রোনাল্ড কোম্যানের দল। ম্যাচের ৮৭ মিনিট পর্যন্ত ২-০ গোলে পিছিয়ে থাকা বার্সেলোনা দুর্দান্তভাবে ম্যাচ জিতে নিয়েছে ৫-৩ ব্যবধানে। অতিরিক্ত সময়ে গড়ানো ম্যাচে দারুণ এই জয়ে কোপা দেল রে’র সেমিফাইনালে উঠে গেছেন লিওনেল মেসি-অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যানরা।

বুধবার রাতের ম্যাচে ৩৩ মিনিটে গোল করে কেনেডি গেটাফেকে প্রথম লিড এনে দেন। এরপর ৪৭ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুন করেন সোলদাদো। ওই দুই গোলেই সহজ জয় দেখছিল গেটাফে। কিন্তু ম্যাচের ৮৮ মিনিটে দৃশ্যপটে চলে আসেন বার্সার ফ্রান্স ফরোয়ার্ড গ্রিজম্যান। তিনি গোল করে ব্যবধান কমান। যোগ করা সময়ে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান জর্ডি আলবা।

ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। সেখানে আবার গ্রিজু শো। অতিরিক্ত সময়ের দশম মিনিটে গোল করে দলকে ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে নেন সাবেক অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ উইঙ্গার। পেনাল্টি পেয়ে তিন মিনিট পরেই সেই গোল শোধ করে দেয় গেটাফে।

ম্যাচ যখন ট্রাইব্রেকারের দিকে এগোচ্ছে। তখন এগিয়ে আসেন ফ্রেঙ্কি ডি জং। ডাচ মিডফিল্ডার ১০৮ মিনিটে গোল করে দলকে আবার এগিয়ে নেন। আর ১১৩ মিনিটে গোল করে ড্র কিংবা হারের শঙ্কা উড়িয়ে দেন বার্সার রাইট ব্যাক আলবা। সেভিয়া, লেভান্তের পরে নিশ্চিত করেন কাতালানদের সেরা চারে জায়গা। অপর জায়গার জন্য লড়বে রিয়াল বেটিস ও অ্যাথলেটিকো বিলবাও।