আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ১৩টি সফল বছরের সেঞ্চুরি, হাফ সেঞ্চুরি সরাসরি দেখেননি তাঁরা। দেখেননি ছেলের বল হাতে বিপক্ষ শক্তির ভিত ভেঙে দেওয়ার দৃশ্যও। দমবন্ধ অবস্থা হওয়ায় হাইলাইটস দেখেছেন। তবে দেশের গণ্ডি পেরিয়ে এবার সেই হৃৎস্পন্দন বেড়ে যাওয়া উত্তেজনাকর দৃশ্যপট উপভোগ করেছেন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের বাবা-মা।

ইংল্যান্ডের মাটিতে সোমবার (২৪ জুন) সাউদাম্পটনের রোজ বোলে আফগানস্তানের বিপক্ষে ছেলের সেরা নৈপুন্য আর সাফল্য সরাসরি দেখলেন তারা।

দেখলেন বিশ্বকাপে ছেলের বিশ্বসেরা রেকর্ড।

গ্যালারিতে বাবা-মাকে সামনে রেখে নিজেকে পুরোপুরি উজাড় করে দিলেন সাকিব।

দেশ ও দেশের বাইরে সাকিবের সঙ্গে স্ত্রী উম্মে আহমেদ শিশির ও মেয়ে অউব্রিকে অনেকবার দেখা গেলেও সাকিবের বাবা খন্দকার মসরুর রেজা কিংবা মা শিরিন আক্তারকে এর আগে কখনোই দেখা যায়নি মাঠে।

বিভিন্ন ব্যস্ততার কারণেই মাঠে যাওয়া হয়নি তাদের।

তবে গত ১৫ জুন সাকিবের বাবা জানিয়েছিলেন, বিশ্বকাপে ছেলের খেলা মাঠে বসে উপভোগ করতে ইংল্যান্ড যাচ্ছেন তিনি। সঙ্গে সহধর্মিণী শিরিন আক্তারকেও নেবেন।

সে উদ্দেশ্য পূরণে গত ১৮ জুন ঢাকা ছেড়ে যান খন্দকার মসরুর রেজা এবং শিরিন আক্তার।

১৯ জুন ইংল্যান্ডের মাটিতে পার রাখেন তারা। যে কারণে ১৭ জনু টনটনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের দুর্দান্ত জয় মাঠে গিয়ে দেখা হয়নি তাদের।

তবে পরবর্তী দিনে (২০ জুন) নটিংহ্যামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঠে বসে ছেলের বিশ্বকাপের খেলা দেখার কথা ছিল তাদের। ভ্রমণ ক্লান্তি থাকায় সে ম্যাচে মাঠে যাওয়া হয়নি তাদের।

অবশেষে গতকাল সাউদাম্পটনে রোজ বোল স্টেডিয়ামেই প্রথম সাকিবের খেলা দেখতে হাজির হন মসরুর রেজা এবং শিরিন আক্তার।

আর এদিন গর্ভধারিণীর মুখে হাসি ফোটালেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। যে স্নায়ুচাপ আর হৃৎস্পন্দন বেড়ে যাওয়ার কারণে সরাসরিতো দূরের কথা টিভি সেটের সামনেই বসতেন না তারা, সে কথা যেন মাথায় ছিল সাকিবের।

ব্যাট হাতে হাফসেঞ্চুরির ঝকঝকে ইনিংস আর বল হাতে প্রথম ওভার থেকেই রান কম দিয়ে আফগানদের উইকেট টপাটপ গিলে খেয়েছেন সাকিব।