অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে দাপটে জয় নিউজিল্যান্ডের

0
10

পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ২-২ সমতা। সিরিজ নির্ধারণী শেষ ম্যাচ হাইভোল্টেজ হবে, কেউ কাউকে ছাড় দেবে না এমন ধারণা করা যাচ্ছিল। কিন্তু ব্যাটিং ও বোলিংয়ে নিউজিল্যান্ডের দাপটে স্রেফ উড়ে গেল অস্ট্রেলিয়া।

৭ উইকেটের অনায়াস জয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিউ জিল্যান্ডের। রোববাার ওয়েলিংটনে আগে ব্যাটিং করে অস্ট্রেলিয়া ৮ উইকেটে ১৪২ রান তোলে। জবাবে নিউ জিল্যান্ড ৩ উইকেট হারিয়ে ২৭ বল আগে ম্যাচ শেষ করে।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে অস্ট্রেলিয়ার উদ্বোধনী জুটি ভেঙে যায় ৮ রানে। ২ রানে বোল্টের বলে এলবিডব্লিউ হন জস ফিলিপে। এরপর অ্যারণ ফিঞ্চ ও ম্যাথু ওয়েড দলকে ৭৪ রান পর্যন্ত এগিয়ে নেন। লেগ স্পিনার ইশ শোধী এ জুটি ভাঙেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ককে ফিরিয়ে। ফিঞ্চ ৩২ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় ৩৬ রান করে আউট হন। এরপর ম্যাক্সওয়েল বলের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ব্যাটিং করে ২৬ বলে তুলে নেন ২৬ রান।

ওয়েড একপাশে থেকে রানের গতি বাড়ালেও তাকে কেউ সঙ্গ দিতে পারেননি। তাকেও ৬ রানের আক্ষেপে পুড়তে। ৪৪ রানে বোল্টের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন। ৩ চার ও ২ ছক্কায় অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটি খেলেন তিনি। এরপর দলের রান কেউ বাড়াতে পারেনি। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে ১৪২ রানে শেষ হয় তাদের ইনিংস।

শোধি ৩ উইকেট নিয়ে নিউ জিল্যান্ডের সেরা বোলার। ২টি করে উইকেট নেন সাউদি ও বোল্ট। ১ উইকেট পেয়েছেন চাম্পম্যান।

লক্ষ্য তাড়ায় উদ্বোধনী জুটিতেই শতরান পায় স্বাগতিকরা। ডেভন কনওয়ে ও মার্টিন গাপটিল ১১.৫ ওভারে তুলে নেন ১০৬ রানে। তাতে জয়ের পথ সহজ জয়ে যায়। কনভয়কে (৩৬) ফিরিয়ে মেরেডিথ জুটি ভাঙেন। ২৮ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কা হাঁকান কনভয়। কিউই অধিনায়ক রানের খাতা খুলতে পারেননি। প্রথম বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরেন সাজঘরে।

জয়ের বাকি কাজ সারেন গাপটিল ও ফিলিপস। ৪৬ বলে ৭ চার ও ৪ ছক্কায় ৭১ রান করে গাপটিল ফিরে এলেও ফিলিপস জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন। ১৬ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৩৪ রান করেন ফিলিপস।
ঝড়ো ব্যাটিংয়ে দলকে জেতানোয় ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হন গাপটিল। ১৩ উইকেট নিয়ে সিরিজ সেরার পুরস্কার পেয়েছেন শোধী।