Image Source: ICC/twitter

গত ১০ বছরে অনেক জয়ই উদযাপন করেছে পাকিস্তানিরা। তবে সোমবার রাতের উদযাপনটা অন্যরকম। দীর্ঘ অপেক্ষা শেষে ঘরের মাঠে বড় কোনও দলের বিপক্ষে যে জয়ের সাক্ষী হওয়ার সুযোগ পেয়েছে তারা। বাবর আজমের সেঞ্চুরি ও উসমান শিনওয়ারির ৫ উইকেটে করাচিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পাকিস্তান পেয়েছে ৬৭ রানের জয়। তাতে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ১-০তে এগিয়ে গেছে স্বাগতিকরা।

করাচির প্রথম ওয়ানডে বৃষ্টিতে ভেসে গিয়েছিল। দ্বিতীয় ওয়ানডেতে অবশ্য অপেক্ষা বাড়েনি। করাচিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বড় কোনও দলের বিপক্ষে খেলতে নেমে উপলক্ষটা পাকিস্তান রাঙিয়ে নিয়েছে জয় দিয়ে। বাবরের ১১৫ রানের চমৎকার ইনিংসে নির্ধারিত ৫০ ওভারে স্বাগতিকরা ৭ উইকেটে করে ৩০৫ রান।

কঠিন এই লক্ষ্যে উসমানের চমৎকার বোলিংয়ে শ্রীলঙ্কা ৪৬.৫ ওভারে ২৩৮ রানে অলআউট হলেও ক্রিকেট বিশ্ব দেখেছে শিহান জয়াসুরিয়া ও দাসুন শানাকার লড়াই। চরম বিপদের সময় ষষ্ঠ উইকেটে তারা গড়েন ১৭৭ রানের রেকর্ড জুটি।

দারুণ বোলিংয়ে ৫১ রানে ৫ উইকেট নেন উসমান। আঁটসাঁট বোলিংয়ে একটি করে উইকেট নেন আমির ও ওয়াহাব রিয়াজ। আগামী বুধবার একই ভেন্যুতে হবে তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

পাকিস্তান: ৫০ ওভারে ৩০৫/৭ (ফখর ৫৪, ইমাম ৩১, বাবর ১১৫, হারিস ৪০, সরফরাজ ৮, ইফতেখার ৩২*, ইমাদ ১২, ওয়াহাব ২; জয়াসুরিয়া ১০-১-৪৮-০, প্রদিপ ৯-০-৫৯-০, উদানা ৯-০-৬০-১, কুমারা ১০-০৫৯-১, গুনাথিলাকা ২-০-৮-০, হাসারাঙ্গা ১০-০-৬৩-২)

শ্রীলঙ্কা: ৪৬.৫ ওভারে ২৩৮ (গুনাথিলাকা ১৪, সামারাবিক্রমা ৬, আভিশকা ০, ওশাদা ১, থিরিমান্নে ০, জয়াসুরিয়া ৯৬, শানাকা ৬৮, হাসারাঙ্গা ৩০, উদানা ১, কুমারা ১, প্রদিপ ০*; আমির ৭-১-২১-১, উসমান ১০-১-৫১-৫, ইমাদ ৭-১-৩৮-১, ওয়াহাব ৯-০-২৭-১, শাদাব ৯.৫-০-৭৬-২, ইফতেখার ৪-১-৯-০)

ফল: পাকিস্তান ৬৭ রানে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: উসমান শিনওয়ারি