দিবা-রাত্রির টেস্টে অভিষেক হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত দুই দলেরই। ২২ নভেম্বর ইডেন গার্ডেনসে ভারত সফরে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টটি হবে ফ্লাড লাইটের মাঝে। দল দুটির প্রথম টেস্ট বলেই তা কোন বলে খেলা হবে এ নিয়ে এক রকম অনিশ্চয়তা ছিল।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলী জানালেন, এসজির গোলাপি বলে খেলা হবে ঐতিহাসিক এই টেস্ট। তেমনটি হলে এসজির গোলাপি বলে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে কোনো টেস্ট।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এসজির লাল বল ব্যবহৃত হয়ে আসলেও ঘরোয়া ক্রিকেটে দিবা-রাত্রির ক্রিকেটে কোকাবুরা বল ব্যবহৃত করে আসছিল বিসিসিআই। কোকাবুরার গোলাপি বলে প্রথম পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছিল পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য অ্যাসোসিয়েশনও। তখন এর প্রধান ছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলী।

ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ইতিমধ্যেই এসজির কাছে ৭২টি গোলাপী বলের অর্ডার দিয়েছে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড। দুই দলের বেশিরভাগ ক্রিকেটারেরই গোলাপী বলে খেলার অভিজ্ঞতা না থাকায় তাদের অনুশীলনও হবে গোলাপী বলে। তাই আগামী ৬ নভেম্বরের মধ্যে বল সরবরাহ করতে বলা হয়েছে এসজিকে।

নিয়মিত ব্যবহার হলেও এসজি বলের মান নিয়ে নানান সময়ে প্রশ্ন উঠেছে। গত বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজে ব্যবহৃত এসজি বল নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এসজির চেয়ে ডিউকস বলের প্রতি নিজের ভালোলাগার কথাও বলেছিলেন অকপটে।