আসন্ন পাকিস্তান সফরে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অনেক ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফরা যেতে চান বলে জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বৃহস্পতিবার বিসিবিতে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি।

বিসিবি প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘একটা হলো বোর্ডের সিদ্ধান্ত, তারপর বোর্ডের বাইরেও আছে যে এখানে আমাদের খেলোয়াড়রা আছে, কোচিং স্টাফরা আছে। তাদের ইচ্ছের একটা ব্যাপার আছে যে তারা সেখানে যেতে চায় কি চায় না, খেলতে যাবে কি যাবে না এটা একটা। আরেকটা সবচেয়ে বড় ব্যাপার হলো সিকিউরিটি ক্লিয়ারেন্স। সরকারের পক্ষ থেকে প্রত্যেকটা জায়গায় সিকিউরিটি ক্লিয়ারেন্স পাওয়া যাচ্ছে কিনা।’

লাহোরে যে শ্রীলঙ্কা টেস্ট দলের ওপর ২০০৯ সালে জঙ্গী হামলার পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ গন্তব্য হয়ে পড়েছিল পাকিস্তান, সেই শ্রীলঙ্কাই ১০ বছর পর সম্প্রতি দুটি টেস্ট খেলল পাকিস্তানে।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) বলছে, পাকিস্তান এখন সম্পূর্ণ নিরাপদ। কোনো দলের জন্যই পাকিস্তানে এসে খেলতে বিন্দুমাত্র ঝুঁকি নেই।

টি-টোয়েন্টি খেলতে সরকারের সব সংস্থার ছাড়পত্র দু-একদিনের মধ্যেই বিসিবি পেয়ে যাবে বলে মনে করছেন নাজমুল হাসান। তবে বড় সংশয় আছে কোচিং স্টাফ আর ক্রিকেটারদের যাওয়া নিয়ে।

আইসিসির সূচি অনুযায়ী আগামী বছরের শুরুর দিকে পাকিস্তান সফর করার কথা রয়েছে বাংলাদেশের। সফরে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি খেলার কথা উল্লেখ রয়েছে। যদিও বিসিবির পক্ষ থেকে জানিয়ে দেয়া হয়েছে, ছোট ফরম্যাটের ক্রিকেটে অংশ নিলেও টেস্ট ম্যাচ খেলতে আগ্রহ নেই তাদের।

এরপর পাকিস্তানের কাছ থেকে টেস্ট না খেলার কারণ জানতে চাওয়া হয়। জবাবে নিরাপত্তার বিষয়টি সামনে এনে ভিন্ন কোনও ভেন্যুতে টেস্ট খেলার আগ্রহ প্রকাশ করা হয় বাংলাদেশের পক্ষ থেকে।