ক্রিকেটে অসামান্য অবদান আছে ক্যারিবীয় গ্রেট ক্লাইভ লয়েড ও গর্ডন গ্রিনিজের। ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ স্বর্ণযুগে প্রবেশ করেছিল তাদের সময়েই। ক্যারিবীয় এই সাবেক দুই ক্রিকেটারকে এবার নাইটহুড সম্মানে ভূষিত করলো যুক্তরাজ্য।

যুক্তরাজ্যের রানীর দেওয়া সর্বোচ্চ সম্মানজনক উপাধি এই নাইটহুড। সেই উপাধির জন্য শুক্রবার নতুন বছরের সম্মানিত ব্যক্তির তালিকায় স্থান পেয়েছেন তারা।

১৯৭৫ ও ১৯৭৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিশ্বকাপ জয়ে নেতৃত্ব দেওয়া ক্লাইভ লয়েডকে বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারজুড়ে ক্রিকেটে অবদান রাখায় সম্মানিত করা হয়। ক্রিকেটার হিসেবে ব্যাটে-বলে ছিলেন সমান উজ্জ্বল ক্লাইভ লয়েড। অলরাউন্ডার আর অধিনায়ক সব কিছুতেই নিজেকে মেলে ধরে হয়ে ওঠেন সত্যিকারের এক কিংবদন্তি।

আর ৬৮ বছর বয়সী গ্রিনিজকে ক্রিকেট ও এর উন্নয়নে অবদান রাখায় নাইট উপাধি দিয়ে সম্মানিত করা হয়। সাবেক এই ওপেনারের কোচিংয়ে ১৯৯৭ সালে আইসিসি ট্রফি জিতে বাংলাদেশ, জায়গা করে নেয় বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে। দুই বছর পর তার অধীনেই প্রথমবারের মতো খেলে বিশ্বকাপে।

লয়েডকে এখন ডাকা হবে ‘স্যার ক্লাইভ’ নামে। তার নেতৃত্বে ১৯৭০ ও ১৯৮০’র দশকে বিশ্ব ক্রিকেটে একচেটিয়া দাপট দেখায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল।

এছাড়া ইংল্যান্ডকে প্রথমবার বিশ্বকাপ জিতিয়ে চার ক্রিকেটারও পেয়েছেন সম্মাননা। পূর্বঘোষণা অনুযায়ী বেন স্টোকস রয়েছেন এই তালিকায়। রয়েছেন দলটির অধিনায়ক এউইন মরগান, জো রুট ও জস বাটলার।

একই সঙ্গে ইংল্যান্ডকে বিশ্বকাপ জেতানো কোচ ট্রেভর বেলিস ও ইসিবি চেয়ারম্যান কলিন গ্রেভসকেও দেওয়া হয়েছে এই সম্মাননা।