বাংলাদেশের আসন্ন পাকিস্তান সফর নিয়ে একের পর এক নাটক মঞ্চস্থ হচ্ছে। পাকিস্তানে সংক্ষিপ্ত সফরেরই পক্ষে ছিলো বাংলাদেশ। তাই বিসিবি বরাবরই তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলার আগ্রহ জানিয়ে এসেছে। কিন্তু পাকিস্তান বোর্ড চাইছে টেস্ট খেলতে। এসব নিয়েই জলঘোলা হচ্ছে। বুধবার বিসিবি প্রধান দাবি করছেন তারা আগের অবস্থানেই আছেন। এর বাইরেও পাকিস্তানের প্রস্তাব বিবেচনা করা যায় কি না-সেই বিষয়েও ভাবছেন তারা।

তবে আলোচনা যে পর্যায়ে তাতে ইঙ্গিতটা স্পষ্ট যে বাংলাদেশ দল পাকিস্তানে অন্তত একটি টেস্ট খেলতে হলেও যাচ্ছে! দুই টেস্ট খেলতে যাওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। তবে সবকিছুই আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে চূড়ান্ত হবে বলে জানিয়েছেন বোর্ড সভাপতি, ‘নিরাপত্তার ব্যাপারে আমরা এজেন্সি থেকে যে রিপোর্ট পাওয়ার তা পেয়েছি। বৃহস্পতিবার একটা সিদ্ধান্ত দিতে পারব।’

দলের সিনিয়র ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিম জানিয়েছেন, পাকিস্তান সফরে যাবেন না তিনি। কোচিং স্টাফদের কয়েকজন না যাওয়ার কথা বলেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন বিসিবি প্রধান।

টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের অংশ হওয়ায় টেস্ট সিরিজ নিয়ে বাংলাদেশের ভাবনাটা বেশি। খেলতে না গেলে কি হতে পারে এর উত্তর খুঁজছে বিসিবি।

পাকিস্তানে টেস্ট খেলতে যাওয়ার ব্যাপারে একটি জায়গায় আটকে গেছে বিসিবি। পাকিস্তান সুপার লিগে খেলতে যাবে বলে ৩৫ জনের নাম নিবন্ধন করা হয়েছিলো। পুরো লিগটি পাকিস্তানে হবে জেনেই বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা তাদের নাম নিবন্ধন করেছিলেন। কিন্তু হুট করেই তারাই আবার সংক্ষিপ্ত সফর কেন করতে চাইছেন-এমনটাই প্রশ্ন রেখেছে পিসিবি। বিসিবি এর সদুত্তর দিতে পারছে না।

ভবিষ্যত সফরসূচি পরিকল্পনায় বলা আছে দুটি টেস্টের কথা। সেখানে একটি টেস্ট খেলার ভাবনাও আছে বিসিবির।