Photo Credit: BCCI/twitter

বেঙ্গালুরুতে অস্ট্রেলিয়াকে ৭ উইকেটে হারানোর পথে ব্যাট হাতে আরেকটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছেন বিরাট কোহলি। আর এটি খেলার পথে তার সাবেক অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন।

প্রথম ম্যাচে ১০ উইকেটে উড়ে গিয়েছিল যে দল, সেই ভারতই পরের দুই ম্যাচে দারুণ জয়ে জিতে গেল সিরিজ। তৃতীয় ওয়ানডেতে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে তারা ৭ উইকেটে।

বেঙ্গালুরুতে রোববার স্টিভেন স্মিথের দারুণ সেঞ্চুরিতে ৫০ ওভারে ২৮৬ রান তোলে অস্ট্রেলিয়া। তবে সেই রানে জমেনি লড়াই। রোহিতের সেঞ্চুরি ও কোহলির সঙ্গে দারুণ জুটিতে ভারত জিতে গেছে ১৫ বল বাকি রেখে।

ক্যারিয়ারে ২৯তম ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অষ্টম সেঞ্চুরিতে রোহিত করেন ১১৯। ম্যাচের সেরা তিনিই। কোহলি সেঞ্চুরি পাননি, ফিরেন ৯১ বলে ৮৯ রান করে। তবে এই ইনিংসের পথে গড়েন অধিনায়ক হিসেবে দ্রুততম পাঁচ হাজার রানের রেকর্ড। দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে স্পর্শ করেন রান তাড়ায় সাত হাজার রানের মাইলফলক।

৩১ বছর বয়সী ব্যাটসম্যান ওয়ানডেতে পঞ্চাশ ছাড়ানো ইনিংসের ‘সেঞ্চুরিতেও’ রেকর্ড গড়েছেন, সবচেয়ে কম ২৩৬ ইনিংস খেলে। ৪৩টি সেঞ্চুরির মালিক এদিন ৫৭তম ফিফটি করেছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া: ৫০ ওভারে ২৮৬/৯ (ওয়ার্নার ৩, ফিঞ্চ ১৯, স্মিথ ১৩১, লাবুশেন ৫৪, স্টার্ক ০, কেয়ারি ৩৫, টার্নার ৪, অ্যাগার ১১*, কামিন্স ০, জ্যাম্পা ১, হেইজেলউড ১*; বুমরাহ ১০-০-৩৮-০, শামি ১০-০-৬৩-৪, সাইনি ১০-০-৬৫-১, কুলদীপ ১০-০-৬২-১, জাদেজা ১০-১-৪৪-২)।

ভারত: ৪৭.৩ ওভারে ২৮৯/৩ (রোহিত ১১৯, রাহুল ১০, কোহলি ১৬, শ্রেয়াস ৪৪*, মনিশ ৪*; কামিন্স ৭-০-৬৪-০, স্টার্ক ৯-০-৬৬-০, হেইজেলউড ৯.৩-১-৪৩-১, অ্যাগার ১০-০-৩৮-১, জ্যাম্পা ১০-০-৪৪-১, লাবুশেন ১-০-১১-০, ফিঞ্চ ১-০-৯-০)।

ফল: ভারত ৭ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে ভারত ২-১ ব্যবধানে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: রোহিত শর্মা

ম্যান অব দা সিরিজ: বিরাট কোহলি