Photo Credit- Pakistan Cricket/ Twitter

রাওয়ালপিন্ডিতে সিরিজের প্রথম টেস্টে আগের দিনই ব্যাটিং ধসের মুখে পড়েছিল বাংলাদেশ। চতুর্থ দিন দেখার ছিল, তাদের প্রতিরোধ কতক্ষণ টেকে। কিন্তু প্রথম সেশনের প্রায় দেড় ঘণ্টাতেই গুটিয়ে গেছে বাংলাদেশের প্রতিরোধ। পাকিস্তানের কাছে এক ইনিংস ও ৪৪ রানে হেরেছে মুমিনুল হকের দল। তাতে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে বাংলাদেশের ভাগ্যে জুটেছে আরেকটি হার।

তৃতীয় দিন বাংলাদেশ দ্বিতীয় ইনিংস শেষ করে ৬ উইকেটে ১২৬ রানে। পাকিস্তান প্রথম ইনিংসে ৪৪৫ রান করায় লিড পেয়েছিল ২১২ রানের। জবাবে শুরুটা দারুণ করলেও ধীরে ধীরে সেই চেনা বাংলাদেশেরই দেখা মিলেছে। দিনের শেষভাগে নাসিম শাহর গতি ঝড়ে এলো মেলো হয়ে গেছে বাংলাদেশের ব্যাটিং। তরুণ পেসার হ্যাটট্রিকে ফিরিয়েছেন শান্ত, তাইজুল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। তাতে সবচেয়ে কম কয়সে টেস্ট হ্যাটট্রিকের কীর্তিও গড়া হয়ে গেছে তার।

আগের দিনে টেস্ট ক্রিকেটে সর্বকনিষ্ঠ বোলার হিসেবে হ্যাটট্রিকর করা নাসিম শাহ ও স্পিনার ইয়াসির শাহ ৪টি করে উইকেট পান। আফ্রিদি ও আব্বাস তুলে নেন একটি করে উইকেট।

বাংলাদেশ এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২৩৩ রানে অলআউট হয়। জাবাবে শান মাসুদ ও বাবর আজমের সেঞ্চুরিতে ৪৪৫ রানের বিশাল সংগ্রহ পায় পাকিস্তান। ম্যাচ সেরা হয়েছেন হ্যাটট্রিকম্যান নাসিম শাহ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ২৩৩

পাকিস্তান ১ম ইনিংস: ১২২.৫ ওভারে ৪৪৫ (মাসুদ ১০০, আবিদ ০, আজহার ৩৪, বাবর ১৪৩, শফিক ৬৫, হারিস ৭৫, রিজওয়ান ১০, ইয়াসির ৫, আফ্রিদি ৩, আব্বাস ১* নাসিম ২; ইবাদত ২৫ -৬-৯৭-১, আবু জায়েদ ২৯-৪-৮৬-৩, রুবেল ২৫.৫-৩-১১৩-৩, তাইজুল ৪১-৬-১৩৯-২, মাহমুদউল্লাহ ২-০-৬-০)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংস: (আগের দিন ১২৬/৬) ৬২.২ ওভারে ১৬৮ (মুমিনুল ৪১, লিটন ২৯, রুবেল ৫, আবু জায়েদ ৩, ইবাদত ০*; আফ্রিদি ১৬-৬-৩৯-১, আব্বাস ১৭.৪-৬-৩৩-১, নাসিম ৮.২-২-২৬-৪, ইয়াসির ১৭.২-৩-৫৮-৪, শফিক ৩-০-১২-০)

ফল: পাকিস্তান ইনিংস ও ৪৪ রানে জয়ী