ঘরের মাঠে ৫ ম্যাচের টি-২০ সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার মধুর প্রতিশোধ নিল নিউজিল্যান্ড। পরবর্তী ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের পর এবার ২ ম্যাচের টেস্ট সিরিজেও টিম ইন্ডিয়াকে হোয়াইটওয়াশ করল কিউয়িরা। ওয়েলিংটনে সিরিজের প্রথম টেস্টে ভারতকে ১০ উইকেটে হারিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। এবার ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় টেস্টে কোহলিদের বিরুদ্ধে ৭ উইকেটে জয় তুলে নিল কেন উইলিয়ামসনরা।

বোলারদের নৈপুণ্যে প্রথম ইনিংসে ভারত পেয়েছিল ৭ রানের ছোট্ট লিড। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ম্যাচ হারল বড় ব্যবধানে। পুরো সিরিজেই ব্যাট হাতে ব্যর্থ ছিলেন অধিনায়ক কোহলি।

হ্যাগলি ওভালে ৬ উইকেটে ৯০ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করেছিল ভারত। এদিন তাদের ইনিংস টিকেছে কেবল ৪৭ মিনিট। শেষ ৪ উইকেটে যোগ করতে পারে তারা ৩৪ রান।

বোল্ট ২৮ রানে ৪ উইকেট দখল করেন। সাউদি নেন ৩৬ রানে ৩ উইকেট। কলিন ডি’গ্র্যান্ডহোম ও নীল ওয়্যাগনার ১টি করে উইকেট নেন দ্বিতীয় ইনিংসে।

প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট ও ব্যাটিংয়ে ৪৯ রানের জন্য ম্যাচ সেরা হয়েছেন কাইল জেমিসন। দুই ম্যাচে ১৪ উইকেট নিয়ে সিরিজ সেরার পুরস্কার পেয়েছেন সাউদি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত ১ম ইনিংস: ২৪২

নিউ জিল্যান্ড ১ম ইনিংস: ২৩৫

ভারত ২য় ইনিংস: (আগের দিন ৯০/৬) ৪৬ ওভারে ১২৪ (পৃথ্বী ১৪, মায়াঙ্ক ৩, পুজারা ২৪, কোহলি ১৪, রাহানে ৯, উমেশ ১, বিহারি ৯, পান্ত ৪, জাদেজা ১৬*, শামি ৫, বুমরাহ ৪; সাউদি ১১-২-৩৬-৩, বোল্ট ১৪-৪-২৮-৪, জেমিসন ৮-৪-১৮-০, ডি গ্র্যান্ডহোম ৫-৩-৩-১, ওয়াগনার ৮-১-১৮-১)।

নিউ জিল্যান্ড ২য় ইনিংস: (লক্ষ্য ১৩২) ৩৬ ওভারে ১৩২/৩ (ল্যাথাম ৫২, ব্লান্ডেল ৫৫, উইলিয়ামসন ৫, টেইলর ৫*, নিকোলস ৫*; বুমরাহ ১৩-২-৩৯-২, উমেশ ১৪-৩-৪৫-১, শামি ৩-১-১১-০, জাদেজা ৫-০-২৪-০, কোহলি ১-০-৪-০)

ফল: নিউ জিল্যান্ড ৭ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: দুই ম্যাচের সিরিজে ২-০ ব্যবধানে জয়ী নিউ জিল্যান্ড

প্লেয়ার অব দা ম্যাচ: কাইল জেমিসন

প্লেয়ার অব দা সিরিজ: টিম সাউদি