WEIGHT-LOSS-BY-WALK

বাজার-ঘাট, অফিস-ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কিংবা রাস্তায় হেঁটে গেলেই হাঁটার উপকারিতা আসবে, নাকি ঘণ্টার পর ঘণ্টা শরীরকে কষ্ট দিয়ে হাঁটলে মিলবে সুফল? কত ক্ষণ ধরে হাঁটবেন বা কখন হাঁটবেন, হাঁটার এ সব নিয়মনীতি না জেনেই হাঁটার জন্য পখে নামলে কিন্তু অসুস্থ হতে পারেন। তাই সচেতন হোন এখন থেকেই ।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, শরীরের বাড়তি ওজন ঝরাতে প্রতিদিন হাঁটার প্রয়োজন নেই। সপ্তাহে মাত্র তিন দিন হাঁটলেই চলবে। তবে এই তিন দিন অন্তত ৩০ মিনিট স্বাভাবিকের তুলনায় একটু বেশি গতিতে হাঁটতে হবে।

হৃদরোগ বিশেষজ্ঞদের মতে, টানা ৩০ মিনিট ঘণ্টায় ২.৫ কিলোমিটার থেকে ৩.৩ কিলোমিটার গতিতে হাঁটলেই হৃৎপিণ্ড তার স্থায়ী গতিশীল অবস্থায় (Low Intensity Steady State) পৌঁছে যায়। দীর্ঘ সময় ধরে হৃৎপিণ্ডের এই স্থায়ী গতিশীল অবস্থা আমাদের ওজন কমাতে সাহায্য করে।

সুতরাং, সপ্তাহে তিন দিন অন্তত ৩০ মিনিট ঘণ্টায় ২.৫ কিলোমিটার থেকে ৩.৩ কিলোমিটার গতিতে হাঁটার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।

চিকিৎসক ও পুষ্টিবিদদের মতে, একটানা হাঁটলেই সুফল আসে। টুকটাক খুচরো হাঁটায় শরীরের কলকব্জা ভালো থাকে ঠিকই, কিন্তু ওতে ওজনে হেরফের হয় না। বরং সপ্তাহে ৩০০ মিনিট হাঁটতেই হবে একটানা। গড় হিসাবে যা দাঁড়ায় প্রায় ৪৩ মিনিট করে। একান্ত না পারলে অন্তত আধ ঘণ্টা বা ৩০ মিনিট একটানা হাঁটুন রোজ। এতে উপকার পাবেন।

তবে হ্যাঁ, শুধু হাঁটলেই হবে না। প্রয়োজন স্বাস্থ্যকর খাবার ও নিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন।

এরই সঙ্গে খাবার থেকে অতিরিক্ত চিনি বা নুন বাদ দিতে হবে। চিকিত্সকের পরামর্শ অনুযায়ী খাদ্যতালিকায় এবং খাবার খাওয়ার সময়ে পরিবর্তন আনুন। উল্লেখিত সব নিয়ম ঠিক মতো মেনে চলতে পারলে দ্রুত কমবে শরীরের বাড়তি ওজন।