Image source: Cricket World Cup/twitter

বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে যেতে অস্ট্রেলিয়াকে হারানো ভীষণ জরুরি ছিল বাংলাদেশের। সেই মিশনে হারই সঙ্গী হয়েছে বাংলাদেশের। অস্ট্রেলিয়ার দেওয়া ৩৮২ রানের টার্গেটে রোমাঞ্চের জন্ম দিয়েও ৪৮ রানে হেরেছে মাশরাফি মুর্তজার দল। বাংলাদেশ ৮ উইকেটে থেমেছে ৩৩৩ রানে।

৪০ ওভার শেষে অস্ট্রেলিয়ার তুলনায় বাংলাদেশ পিছিয়ে ছিল কেবল ৫ রানে। শেষ ১০ ওভারে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা যে ঝড় তুলেছিল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল দিতে পারেনি তার জবাব। মুশফিকুর রহিমের দারুণ সেঞ্চুরির পরও তাই বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের কাছে হারল ৪৮ রানে।

টস জিতে রানের পাহাড় গড়ে অস্ট্রেলিয়া। ৫ উইকেটে করে ৩৮১ রান। অস্ট্রেলিয়ার এই বিশাল সংগ্রহে সবচেয়ে বড় অবদান ছিল ডেভিড ওয়ার্নারের।

উদ্বোধনী জুটিতে ফিঞ্চের (৫৩) সঙ্গে ১২১ ও দ্বিতীয় উইকেটে খাজার (৮৯) সঙ্গে ১৯২ রানের জুটি গড়ার পথে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৬তম সেঞ্চুরি পূরণ করেন তিনি। শেষ পর্যন্ত খেলেন ১৬৬ রানের অসাধারণ এক ইনিংস।

মুশফিক ৯৫ বলে তুলে নেন বিশ্বকাপের প্রথম সেঞ্চুরি। আর ক্যারিয়ারের সপ্তম। ‍মুশফিকের এই সেঞ্চুরিই হয়ে থাকলো ম্যাচের সান্ত্বনা। অপরাজিত থাকেন ১০২ রানে। তাতে ছিল ৯টি চার ও ১টি ছয়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া: ৫০ ওভারে ৩৮১/৫ (ফিঞ্চ ৫৩, ওয়ার্নার ১৬৬, খাওয়াজা ৮৯, ম্যাক্সওয়েল ৩২, স্টয়নিস ১৭*, স্মিথ ১, কেয়ারি ১১*; মাশরাফি ৮-০-৫৬-০, মুস্তাফিজ ৯-০-৬৯-১, সাকিব ৬-০-৫০-০, রুবেল ৯-০-৮৩-০, মিরাজ ১০-০-৫৯-০, সৌম্য ৮-০-৫৮-৩)।

বাংলাদেশ: ৫০ ওভারে ৩৩৩/৮ (তামিম ৬২, সৌম্য ১০, সাকিব ৪১, মুশফিক ১০২*, লিটন ২০, মাহমুদউল্লাহ ৬৯, সাব্বির ০, মিরাজ ৬, মাশরাফি ৬; স্টার্ক ১০-০-৫৫-২, কামিন্স ১০-০-৬৫-০, ম্যাক্সওয়েল ৩-০-২৫-০, কোল্টার-নাইল ১০-০-৫৮-২, স্টয়নিস ৮-০-৫৪-২, জ্যাম্পা ৯-০-৬৮-১)।

ফল: অস্ট্রেলিয়া ৪৮ রানে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: ডেভিড ওয়ার্নার