জানাজায় লাখো মানুষের সমাগম, এবার সার্কেল এএসপিকে প্রত্যাহার

0
33
janaja

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাওলানা যুবায়ের আহমদ আনসারীর জানাজায় লোক সমাগ‌মের বিষ‌য়ে যথাযথ ব্যবস্থা নি‌তে না পারায় সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) প্রত্যাহারের পর এবার ওই এলাকার সা‌র্কেল এএস‌পিকেও প্রত্যাহার করা হয়েছে। একইসঙ্গে ঘটনাটি তদন্তে তিন সদ‌স্যের একটি ক‌মি‌টি গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পু‌লিশ সদর দপ্তর।

এর আগে জানাজায় লাখো মানুষের ঢল থামাতে ব্যর্থ হওয়ায় সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাৎ হোসেন টিটুকে প্রত্যাহার করা হয়। গতকাল শনিবার রাত ১১টার দিকে পু‌লিশ সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়।

আজ রোববার পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি (মিডিয়া) মো. সোহেল রানা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘ব্রাহ্মণবা‌ড়িয়ায় জানাজায় লোক সমাগ‌মের ঘটনায় ও‌সিসহ সা‌র্কেল এএস‌পিকেও প্রত্যাহার করা হয়েছে। এ ছাড়াও তিন সদ‌স্যের একটি তদন্ত ক‌মি‌টি গঠন করা হয়েছে।’

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেই শনিবার সকালে অনুষ্ঠিত ইসলামি আলোচক আল্লামা মাওলানা যুবায়ের আহমদ আনসারীর জানাজায় লাখো মানুষের সমাগম হয়েছে। এ সময় লোকজনের উপস্থিতি মাদ্রাসা মাঠ ছাড়িয়ে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের দুইপাশে ছড়িয়ে যায়। শুধু তাই নয়, ওই এলাকার বিভিন্ন ভবনের ছাদেও মানুষের উপস্থিতি দেখা যায়।

এ বিষয়ে গতকাল সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহাদাৎ হোসেন টিটু বলেন, ‘আমরা চিন্তাও করতে পারিনি যে এত লোক হবে। কত লোক হয়েছিল তার তো সঠিক হিসাব নেই। তবে অনেকেই ধারণা করছেন লাখের মতো মানুষ হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা গতকালই ওই মাদ্রাসায় গিয়ে বলে এসেছিলাম জানাজায় যেন বেশি লোকের সমাগম না করা হয়। তারা বলেছিল ৫০/৬০ জন যারা মাদ্রাসায় আছেন, শুধু তারাই অংশ নেবেন হুজুরের জানাজায়। বাইরের কাউকে ডাকা হয়নি। কিন্তু সকাল ১০টায় জানাজা অনুষ্ঠিত হওয়ার আগে থেকে হঠাৎ হাজার হাজার মানুষ জমা হতে শুরু করে। আমরা দুই থানার কিছু পুলিশ সেখানে উপস্থিত ছিলাম। কিন্তু আমাদের কিছুই করার ছিল না।’