ক্রিকেটারদের স্বাস্থ্যের পরীক্ষায় অ্যাপ, দিতে হবে ১৮ প্রশ্নের উত্তর

0
11

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারীকালে ক্রিকেটারদের স্বাস্থ্যের খোঁজ রাখতে বিশেষ অ্যাপ চালু করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এটির নাম ‘কোভিড-১৯ ওয়েল বিয়িং অ্যাপ’। বোর্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী গত বৃহস্পতিবার থেকে ক্রিকেটাররা নিজেদের স্বাস্থ্যবিধি জমা দিতে শুরু করেছেন।

করোনাকালে ক্রিকেটাররা কেমন আছেন? কেউ আক্রান্ত হলেন? কী স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে? এই সমস্ত বিষয়ে উত্তর পাওয়া যাবে এই বিশেষ অ্যাপে। এই অ্যাপের মাধ্যমে ক্রিকেটারদের একটি কেন্দ্রীয় সার্ভারে যুক্ত করা হবে। তাদের দেয়া তথ্য সেই সার্ভারে জমা হবে।

কোনো ক্রিকেটারের মধ্যে সংক্রমণের সম্ভাবনার কোনো তথ্য পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন বোর্ডের ডাক্তাররা। প্রাথমিকভাবে ৪০ জন ক্রিকেটার এই বিশেষ অ্যাপে নিজেদের স্বাস্থ্য সম্বন্ধে যাবতীয় তথ্য জানিয়েছেন।

ওই তথ্য মতে, রেড জোনের আওতাভুক্ত হয়েছেন বাঁহাতি স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লব ও পেস বোলিং অলরাউন্ডার মহম্মদ সাইফউদ্দিন। তবে বোর্ডজানায়, এই দুই ক্রিকেটার কোনভাবেই করোনায় আক্রান্ত নন। করোনা রিপোর্টে তেমন কিছু পাওয়া যায়নি। তবে সর্বক্ষণ পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

যে ভাবে কাজ করছে অ্যাপটি :

অ্যাপটি প্রথমে ক্রিকেটাররা প্রথমে নিজেদের মোবাইলে ডাউনলোড করতে হবে। এরপর সেখানে থাকা ১৮টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। এই প্রশ্নের জবাবের প্রেক্ষিতে ক্রিকেটারদের রেড, ইয়োল, গ্রীন (লাল, হলুদ ও সবুজ) এই তিন ভাগে ভাগ করা হবে।

এর মধ্যে যারা রেড জোনের আওতার পড়বেন তাদের নাম ও তথ্য সঙ্গে বিসিবির ম্যানেজমেন্ট অ্যান্ড ইনফরমেশন বিভাগের ম্যানেজার নাসির উদ্দিন আহমেদ নাসু, ক্রিকেট অপারেশন ম্যানেজার সাব্বির খান ও প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চেীধুরীর কাছে পৌঁছে যাবে। তারা আলোচনা করে তারপর যাবতীয় ব্যবস্থা নেবেন।

এ বিষয়ে বিসিবি জানায়, ‘রেড ক্যাটাগরির অন্তর্ভুক্ত হওয়া মানেই কিন্তু করোনা আক্রান্ত নয়। অ্যাপে লাল সংকেতের মানে হল ১৮টি প্রশ্নের কোনো একটি নেগেটিভ উত্তর ছিলো। তাই দ্রুততার সঙ্গে সেই ক্রিকেটারের সাথে কথা বলে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। সিনিয়র ক্রিকেটারদের নিয়ে এই অ্যাপ চালু হলেও দ্রুত অনূর্ধ্ব ১৯ ও মহিলা ক্রিকেট দলের সদস্যদের এই প্রযুক্তির মধ্যে নিয়ে আসা হবে।