Photo Credit: ICC/ twitter

শেষ ১০ ওভারে কী ঝড়টাই না তুলেছিলেন নিকোলাস পুরান আর কাইরন পোলার্ড! আর তাতেই কটকে ওয়ানডে সিরিজ নির্ধারণী শেষ ম্যাচে ভারতকে ৩১৬ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর দিতে পারে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কিন্তু রান তাড়ায় দুর্ধর্ষ ভারতের সঙ্গে তারা পেরে ওঠেনি। তাতে ৮ বল হাতে রেখে ৪ উইকেটে জেতে ভারত, তিন ম্যাচের সিরিজটাও জিতে ২-১ ব্যবধানে।

রোববার ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৫০ ওভারে তুলেছিল ৫ উইকেটে ৩১৫ রান। রান তাড়ায় ভারত দারুণ শুরুর পর মাঝপথে খেই হারিয়ে পরে জিতেছে ৮ বল বাকি রেখে।

৮১ বলে ৮৫ রান করে যখন আউট হলেন কোহলি, ভারতের জিততে প্রয়োজন তখন ২৩ বলে ৩০ রান। এক পাশে ছিলেন জাদেজা, আরেকপাশে সবাই বোলার। সেই বোলারদের একজনই হয়ে উঠলেন ব্যাটসম্যান!

উইন্ডিজের হয়ে প্রথম উইকেটে ৫৭ রান যোগ করেন এভিন লুইস (২১) ও শাই হোপ (৪২)। লুইস ফেরার কিছুক্ষণ পর বিদায় নেন হোপ। আরেকটি পঞ্চাশ ছাড়ানো জুটি তৈরি হয় রোস্টন চেজ ও শিমরন হেটমায়ারের ব্যাটে। ৬২ রানের এই জুটি ভাঙে হেটমায়ারের (৩৭) বিদায়ে।

উইকেটে পোলার্ড ও পুরান একসঙ্গে হতেই বদলে যায় ম্যাচ। ৯৮ বলে ১৩৫ রানের ঝড়ো জুটি গড়েন তারা। ৪৩ বলে চারটি চার ও দুটি ছয়ে পাওয়া ফিফটিকে তিন অঙ্কের ঘরে নিতে পারেননি পুরান। ৬৪ বলে ১০ চার ও ৩ ছয়ে ইনিংস সেরা ৮৯ রানে আউট হন ৪৮তম ওভারে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ৫০ ওভারে ৩১৫/৫ (লুইস ২১, হোপ ৪২, চেইস ৩৮, হেটমায়ার ৩৭, পুরান ৮৯, পোলার্ড ৭৪*, হোল্ডার ৭*, পল ৪৬, জোসেফ ০, পিয়ের ২১, কটরেল ০*; শার্দুল ১০-০-৬৬-১, শামি ১০-২-৬৬-১, সাইনি ১০-০-৫৮-২, কুলদীপ ১০-০-৬৭-০, জাদেজা ১০-০-৫৪-১)।

ভারত: ৪৮.৪ ওভারে ৩১৬/৬ (রোহিত ৬৩, রাহুল ৭৭, কোহলি ৮৫, শ্রেয়াস ৭, পান্ত ৭, কেদার ৯, জাদেজা ৩৯*, শার্দুল ১৭*; কটরেল ১০-১-৭৪-১, হোল্ডার ১০-০-৬৩-১, পল ৯.৪-০-৫৯-৩, চেইস ৪-০-১৯-০, পিয়ের ৭-০-৪৬-০, জোসেফ ৯-০-৫৩-১)।

ফল: ভারত ৪ উইেকটে জয়ী

সিরিজ: ৩ ম্যাচ সিরিজে ভারত ২-১ ব্যবধানে জয়ী

ম্যান অব দা ম্যাচ: বিরাট কোহলি

ম্যান অব দা সিরিজ: রোহিত শর্মা